বেশির ভাগ মানুষ আছেন যারা গো’প’ন স’ম’স্যা নিয়ে খো’লাখু’লি আ’লোচনা ক’রতে চান না। আর এমনকী’, এ সং’ক্রা’ন্ত স’মস্যা দেখা দিলে ডা’ক্তা’রের কাছে যেতেও অনেক সময় অ’নি’হা দেখা দেয়৷ অনেক স্থানে দেখবেন ১ টু’ক’রো মু’খে নিয়ে ১ ঘ’ন্টা করুন এমনটা বলে থাকে, বাস্তবে এটা স’ম্ভ’ব না।

বি’শে’ষজ্ঞরা বলছেন,আমাদের প্র’কৃতিতেই এমন অনেক জি’নিস আছে, যা কিনা দূ’র ক’রতে পারে এ স’ম’স্যা! আ’মে’রিকার এক বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা অনুযায়ী, তরমুজ নাকি এ ব্যা’পা’রে দা’রু’ণ কাজ করে, শ’ক্তি’র দিক থেকে অ’ক্ষ’ম বা দু’র্ব’ল, তাদের স’ক্ষ’মতার জন্য তরমুজই প্রা’কৃ’তিক প্র’তি’ষে’ধ’ক। অর্থাৎ তাদের এখন থেকে আর ভা’য় ‘গ্রার পেছনে অর্থ না ঢে’লে তরমুজে আ’স্থা রাখলেই চলবে।আরও পড়ুন : নিজেকে সু’স্থ রাখার জন্য শ’রী’রের কিছু জায়গায় অ’হে’তুক হা’ত দেয়া উ’চিত নয়।

তবে সব সময় সেটা খে’য়া’ল রাখা সম্ভব হয় না। ভু’লব’শত হাত চলে যায় সেসব স্থানে।তবে এই অ’ভ্যাস থাকলে পরবর্তী জীবনে ভু’গ’তে হতে পারে, ডে’কে আনতে পারে বি’প’দ। সে কারণে কখনো শ’রী’রের এই জা’য়গা’গুলোতে হা’ত দেবেন না ভু’লেও।

প্রথমত চো’খে হা’ত দেয়া থেকে বি’র’ত থাকা দরকার। কারণ, আমাদের হাতে যে জী’বা’ণু থাকে, সেগুলো চোখে গে’লে বড় ধরনের ক্ষ’তি হওয়ার শ’ঙ্কা রয়েছে। সুতরাং মুখ ধো’য়া বা ক’ন্ট্যা’ক্ট লে’ন্স পরার সময় ছাড়া চো’খে হা’ত না দেয়া ভালো।

চো’খে’র পরেই কা’ন আমাদের শ’রী’রের স্প’র্শ’কা’তর জায়গা। কা’নে বেশি হাত না দেয়া ভালো। অ’য’থা অন্য কোনো জিনিস দিয়ে কান প”রিষ্কারও করবেন না। এতে কা’নের প’র্দা ছিঁ”ড়ে যাওয়ার শ’ঙ্কা থাকে আমাদের হাতে যে’হে’তু নানা রকম জী’বা’ণু থাকে। চি’ন্তা’র সময় বা দিনের বিভিন্ন সময় মুখে হাত দিলে সেই জী’বা’ণু সো’জা পে’টে চলে যাওয়ার আ’শ’ঙ্কা থাকে। যা ডে’কে আ’নতে পারে মা’রা’ত্মক বি’প’দ।

সে কারণে মু’খে হা’ত ঢু’কি’য়ে দেয়া থেকে বি’র’ত থাকতে হবে। প্র’চ’ণ্ড ক্ষু’ধা থাকলেও খা’লি পে’টে ভু’লেও খাবে’ন না যে ৪ টি খাবার! প্রচ’ণ্ড ক্ষু’ধা পেলে ঘরে যা থাকে তাই খেয়ে ক্ষু’ধা নি’বা’রণ করি। কেননা ক্ষু’ধা পেলে খাবার না খাওয়া পর্যন্ত কিছুই ভালো থাকে না।

তাই যত তা’ড়াতা’ড়ি সম্ভব খাবার খেয়ে ক্ষু’ধা মে’টা’নো হয়।কিন্তু এ সময় সব ধ’রনের খাবার খাওয়া উচিত নয়, কারণ কিছু খাবার আছে যেগুলো খি’দে’র সময়ে খেলে যেমন পে’টের ক্ষি’দে মি’ট’বে না তেমনি শ’রী’রের অনেক বড় ক্ষ’’তি হতে পারে।