ঘূর্ণিঝ’ড় ইয়াসের প্রভাবে উত্তাল হয়ে উঠেছে ভোলার নদ-নদীগুলো। মাঝে মধ্যে ঝ’ড়ো বাতাস ও গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। তীরে ফিরতে শুরু ক’রেছে মাছ ধ;রার নৌকা ও ট্রলার। এদিকে ইয়াসের প্রভাবে প্লাবিত হয়েছে ভোলার ঢালচর ইউনিয়ন।

মঙ্গলবার (২৫ মে) সকালে এ তথ্য পাওয়া যায়। এদিকে ঘূর্ণিঝ’ড় ’ইয়াস’ থেকে উপকূলের বাসিন্দাদের স’ত’র্ক করতে মাইকিং করছে সিপিপির স্বেচ্ছাসেবীরা।

সোমবার (২৪ মে) দুপুর থেকে ভোলা সদরসহ বিভিন্ন উপজে’লার উপকূলীয় অঞ্চলে এ প্রচারণা চালায় তারা। ভোলা জে’লা প্রাশাসক অফিস সূ’ত্র জানায়, ভোলা উপকূলের ৩ লাখ ১৮ হাজার বাসিন্দাকে স’রি’য়ে আনার প্রস্তুতি নিয়েছে জে’লা প্রশাসন।

জে’লার ৭ উপজে’লার প্রায় ৪০টি দ্বীপচরকে ঝুঁ’কিপূর্ণ, চিহ্নিত ক’রে তাদের আশ্রয় কেন্দ্রে আনার এ প্রস্তুতি নেওয়া হয়ছে বলে জানিয়েছেন ভোলা জে’লা প্রশাসক মোহাম্মদ তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী। তিনি বলেন, ঝ’ড় মোকাবিলায় জে’লার ৭০৯টি আশ্রয় কেন্দ্রকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। গঠন করা হয়েছে ৭৬টি মে’ডি’ক্যাল টিম। অন্যদিকে সিপিপি’র ১৩ হাজার স্বেচ্ছাসেবী ছাড়াও রেডক্রিসেন্ট এবং স্কাউটস ক’র্মীদের প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জে’লা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খোলা হয়েছে ৮টি কন্ট্রোল রুম।

ঘূর্ণিঝ’ড়ে যাতে উপক‚লীয় জে’লা ভোলাতে ক্ষয়ক্ষ’তি কম হয় সে লক্ষে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি। Share