পিরি’য়ড চলাকালীন সময়ে নিচের চারটি কাজ অবশ্যই ব’র্জন করুন ? ( লজ্জা নয়, বাঁচতে হলে জানতে হবে )১। পি’রিয়ড চলা’কালীন সময়ে ঠান্ডা জল, কোমল পানীয় এবং নারিকেল খাবেন না।

২। এইসময় মাথায় শ্যাম্পু ব্যাবহার করবেন না। কারণ পি’রিয়ডের সময় চুলের গোড়া আলগা হয় ফলে লোমকূপ উন্মুক্ত হয়ে পড়ে।শ্যাম্পু ব্যবহার এসময় অত্যন্ত ঝুঁ’কিপূর্ণ এবং দীর্ঘস্থায়ী মাথাব্যথার কারণ হতে পারে।৩। এইসময় শশা খাবেন না। কারণ শশার মধ্যে থাকারস পি’রিয়ডের রক্ত’কে জ’রায়ু প্রাচীরে আটকে দিতে পারে। যার ফলে আপনার বন্ধ্যা হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

৪। এছাড়াও লক্ষ্য রাখবেন, পি’রিয়ডের সময় যেন শরীরে শক্ত কিছুর আঘাত না লাগে, বিশেষত পেটে। পিরিয়ডের সময়টায় জ’রায়ু খুব নাজুক থাকে ফলে অল্প আঘা’তেই মারা’ত্মক ক্ষ’তিগ্রস্থ হতে পারে। যার ফলে পরবর্তীতে জরায়ু ক্যান্সার, জ’রায়ুতে ঘাঁ কিংবা বন্ধ্যাত্যের ঝুঁকি থাকে।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, পিরিয়ড চলাকালীন সময়ে ঠান্ডা জল পান করার ফলে পিরিয়ডের রক্ত বের না হয়ে জরায়ু প্রাচীরে জ’মাট বাঁধতে পারে। যা পরবর্তী ৫ থেকে ১০ বছরের মধ্যে জ’রায়ু টিউ’মার বা ক্যা’ন্সারের আকার ধারণ করতে পারে। তাই কুসুম কুসুম গরম জল খাবেন

দয়াকরে এই তথ্যটুকু আপনার স্ত্রী, মা, বোন, কন্যা সকলের কাছে পৌঁছে দিন যেকোন কিংবা কারো মাধ্যমে। আপনার মাধ্যমে যদি একজন নারীও উপকৃত হয় সেটাও পরম পাওয়া।জরায়ু ক্যান্সার ও বন্ধ্যান্ত মুক্ত হোক আমাদের মা, বোনেরা। (শেয়ার করুন)১। পিরিয়ড চলাকালীন সময়ে ঠান্ডা জল, কোমল পানীয় এবং নারিকেল খাবেন না।

২।এইসময় মাথায় শ্যাম্পু ব্যাবহার করবেন না। কারণ পি’রিয়ডের সময় চুলের গোড়া আলগা হয় ফলে লোমকূপ উন্মুক্ত হয়ে পড়ে।শ্যাম্পু ব্যবহার এসময় অত্যন্ত ঝুঁ’কিপূর্ণ এবং দীর্ঘস্থায়ীমাথা’ব্যথার কারণ হতে পারে।

৩। এইসময় শশা খাবেন না। কারণ শশার মধ্যে থাকারস পি’রিয়ডের র’ক্তকে জ’রায়ু প্রাচীরে আটকে দিতে পারে। যার ফলে আপনার বন্ধ্যা হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

৪।এছাড়াও লক্ষ্য রাখবেন, পিরিয়ডের সময় যেন শ’রীরে শ’ক্ত কিছুর আ’ঘাত না লাগে, বিশেষত পেটে। ‘পিরি’য়ডের সময়টায় জ’রায়ু খুব নাজুক থাকে ফলে অল্প আঘাতেই মারা’ত্মক ক্ষ’তিগ্রস্থ হতে পারে। যার ফলে পরবর্তীতে জ’রায়ু ক্যা’ন্সার, জ’রায়ুতে ঘাঁ কিংবা বন্ধ্যাত্যের ঝুঁ’কি থাকে।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, পি’রিয়ড চলাকালীন সময়ে ঠান্ডা জল পান করার ফলে পিরিয়ডের রক্ত বের না হয়ে জ’রায়ু প্রাচীরে জমাট বাঁ’ধতে পারে। যা পরবর্তী ৫ থেকে ১০ বছরের মধ্যে ‘জরা’য়ু টিউ’মার বা ক্যা’ন্সারের আকার ধারণ করতে পারে। তাই কুসুম কুসুম গরম জল খাবেন।

দয়াকরে এই তথ্যটুকু আপনার স্ত্রী, মা, বোন, কন্যা সকলের কাছে পৌঁছে দিন যেকোন কিংবা কারো মাধ্যমে। আপনার মাধ্যমে যদি একজন নারীও উপকৃত হয় সেটাও পরম পাওয়া জরায়ু ক্যা’ন্সার ও বন্ধ্যান্ত মুক্ত হোক আমাদের মা, বোনেরা। (শেয়ার করুন)